বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করার সহজ উপায় - ব্লগিং করে অনলাইন ইনকাম

বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করার সহজ উপায় - ব্লগিং করে অনলাইন ইনকাম

বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয়


আপনি কি জানেন বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করা যায়? আমাদের দেশে এমন অনেকেই আছেন যারা ঘরে বসে প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছেন বাংলা ওয়েবসাইট তৈরী করে। তারা যদি পারে তাহলে আপনি কেন পারবেন না? আপনি চাইলে খুব সহজেই একটি বাংলা ওয়েবসাইট তৈরী করে আয় করতে পারেন। কারণ এখন আর ওয়েবসাইট তৈরী করা খুব বেশি ঝামেলার কাজ নয়। আমরা যারা ইংরেজী ভালো পারি না তারা চাইলে খুব সহজে নিজে নিজে বাংলা ওয়েবসাইট তৈরী করে অনলাইন ইনকাম শুরু করে দিতে পারি। 

বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে খুব বেশি অভিজ্ঞতার প্রয়োজন নেই। শুধু লেখা-লেখির একটু দক্ষতা থাকলেই হবে। আপনি যে কোন বিষয়ের উপর বাংলায় আর্টিকেল লিখে ওয়েবসাইটে পোষ্ট করে রেখে দেবেন তাতেই হবে। বাকী যা কিছু প্রয়োজনীয় তা আপনি ধীরে ধীর নিজেই বুঝে যাবেন। 

আপনারা যারা জানেন না বাংলা ওয়েবসাইট কি, আর্টিকেল কি, কিভাবে বাংলাতে আর্টিকেল লিখতে হয়, কিভাবে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় হয়, আপনি কিভাবে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে পারবেন, কি কি উপায়ে সহজে বাংলা ওয়েবসাইট তৈরী করা যায়, প্রতি মাসে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে কি পরিমাণ টাকা আয় করা যেতে পারে, কত দিন সময় লাগতে পারে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় হতে এ সকল বিষয়ে বিস্তারিত উল্লেখ করার চেষ্টা করবো। যাতে আপনারাও খুব সহজে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে পারেন। তাহলে চলুন শুরু করা যাক -

বাংলা ওয়েবসাইট কি?

যার মাধ্যমে কোন ওয়েব সার্ভারে রাখা কতগুলো ওয়েব পেজ বা ডিজিটাল কন্টেন্টকে একত্রিত করে প্রদর্শন করা হয় তাকে ওয়েবসাইট বলে। যে ওয়েব পেজ বা ওয়েবসাইটের সকল তথ্য বাংলা ভাষায় লেখা থাকে তাকে বাংলা ওয়েবসাইট বলা হয়। ওয়েবসাইট যেকোন ভাষায় হতে পারে। আমরা বাঙ্গালীরা নিজেদের সুবিধার জন্য বাংলা ওয়েবসাইট তৈরী করে থাকি।

আর্টিকেল কি?

ওয়েবসাইট তৈরী করতে হলে কন্টেন্ট এর প্রয়োজন হয় যেমন- লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও কোন ওয়েবসাইটের ক্ষেত্রে এসব কিছুই কন্টেন্ট। কন্টেন্ট ছাড়া কোন ওয়েবসাইট তৈরী করা যায় না। এখন ওয়েবসাইটের মধ্যে কোন বিষয় নিয়ে লেখা লেখি করলে আমরা তাকে লেখা বলতে পারি না। ওয়েবের ভাষায় তাকে আর্টিকেল বলতে হয়। 

কোন কিছু সম্পর্কে আমাদের জানার দরকার হলে আমরা সরাসরি গুগলে সার্স করি। গুগল আমাদেরকে কিছু রেজাল্ট সামনে এনে দেয় এবং সেখানে প্রবেশ করলে দেখা যায় কেউ না কেউ আমাদের কাঙ্খিত বিষয়ের উপর লিখে রেখে দিয়েছে। আমরা সেগুলো পড়ে আমাদের প্রয়োজনীয় তথ্য জেনে নিতে পারি। এইযে কেউ না কেউ তথ্যগুলো লিখে রেখে দিয়েছে এই লেখাগুলোকেই আমরা আর্টিকেল বলবো।

বাংলা আর্টিকেল কাকে বলে?

আমরা যদি বুঝি আর্টিকেল কি, তাহলে বাংলা আর্টিকেল কি সেটিও খুব সহজে বুঝতে পারবো। যেহেতু কোন ওয়েবসাইটের মধ্যে কোন বিষয় নিয়ে বিস্তারিত লেখাকে আমরা আর্টিকৈল বলি সেহেতু সেই লেখাগুলো যদি বাংলাতে লেখা থাকে তাহলে আমরা তাকে বাংলা আর্টিকেল বলতে পারি। অর্থাৎ কোন ওয়েবসাইটের মধ্যে কোন বিষয়ের উপর বাংলা ভাষায় বিস্তারিত লেখাকে বাংলা আর্টিকেল বলে।

বাংলা আর্টিকেল কিভাবে লিখবেন ?

যেহেতু আর্টিকেল লিখতে হয় সেহেতু বাংলা আর্টিকেল লেখার জন্য আপনাকে বাংলা টাইপ করা জানতে হবে। আপনি যদি কোন খাতায় আর্টিকেল লেখেন তাহলে হবে না। আর্টিকেল লিখতে হবে কম্পিউটারে যাতে খুব সহজে আমরা সেটিকে ওয়েবসাইটের মধ্যে ব্যবহার করতে পারে। অনেকেই মোবাইলের মাধ্যমে টাইপ করে থাকে, তবে মোবাইলের মাধ্যমে আর্টিকেল লেখা কষ্টকর হলেও অসম্ভব কিছু না। 

বাংলা আর্টিকেল লিখতে হলে যেসকল বিষয়ের উপর লক্ষ্য রাখতে হবে:-

আপনি যে বিষয়ের উপর আর্টিকেল লিখবেন সেই বিষয়ের উপর খুব ভালো জ্ঞান থাকতে হব। আপনি যে বিষয়ের উপর আর্টিকেল লিখতে চান সেই বিষয়ের উপর আপনার ভালো ধারণা না থাকলে সে বিষয়ে কিছু পড়াশোনা করতে পারেন, গুগলে সার্স করে, ইউটিউবে ভিডিও দেখে পর্যাপ্ত পরিমাণ ধারণা নিতে পারেন। যেকোন উপায় আপনার লেখা তথ্যবহুল হতে হবে। যাতে ভিজিটর আপনার আর্টিকেল পড়ে উপকৃত হয়।

আর্টিকেলের মধ্যে উল্লেখ করা তথ্য সঠিক হতে হবে। আর্টিকেল ইউনিক হতে হবে, কোনভাবেই অন্যের লেখা আর্টিকেল কপি করা যাবে না। আপনি অন্যের আর্টিকেল পড়ে ধারণা নিতে পারেন তবে লেখার সময় অবশ্যই লেখাটি সাজিয়ে গুছিয়ে লিখতে হবে এবং আপনার নিজের ভাষায় নিজের মত করে লিখতে হবে যাতে অন্যের সাথে না মিলে যায়।

কিভাবে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় হয়?

আমরা এতক্ষণ জানলাম ওয়েবসাইট কি? আর্টিকেল কি? বাংলা আর্টিকেল কিভাবে লিখতে হয়? এখন জানবো কিভাবে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করা হয় এবং কিভাবে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করা যায়। 

আপনি যদি একটি বাংলা ওয়েবসাইট তৈরী করেন তাহলে অবশ্যই তা থেকে আয় করতে পারবেন। বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করার সব থেকে ভালো উপায় হলো, গুগল এ্যাডসেন্স। বাংলা ওয়েবসাইট তৈরী করে গুগল এ্যাডসেন্স দিয়ে প্রত্যেক মাসে হাজার হাজার ডলার আয় করতে পারবেন। গুগল এ্যাডসেন্স ছাড়াও আরো কিছু জনপ্রিয় এ্যাড নেটওয়ার্ক আছে যারা এ্যাডসেন্স এর মতই কাজ করে।

আপনি অবশ্যই লক্ষ্য করেছেন যখন কোন ওয়েবসাইটে ভিজিট করেন তখন আর্টিকেল বা ছবির আশে পাশে কিছু বিজ্ঞাপন দেখা যায়। যে বিজ্ঞাপনগুলোর অধিকাংশই গুগল এ্যাডসেন্স এর বিজ্ঞাপন। এই সব বিজ্ঞাপনে ভিজিটর ক্লিক করলেই ওয়েবসাইট মালিকের আয় হয়।

বাংলা ওয়েবসাইট থেকে গুগল এ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে আয় করা ছাড়াও আপনি চাইলে এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করতে পারেন। বাংলাদেশি কিছু ইকমার্স ওয়েবসাইট আছে তাদের প্রোডাক্ট রিলেটেড কন্টেন্ট লিখে সেখানে এ্যাফিলিয়েট লিংক এ্যাড করে প্রোডাক্ট সেল করে কমিশন নিতে পারবেন। 

তাছাড়া আপনি চাইলে আপনার ওয়েবসাইটে স্পন্সর বিজ্ঞাপন দিয়েও অনেক ভালো পরিমান আয় করতে পারেন।

কিভাবে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করবেন?

বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে হলে অবশ্যই একটি ওয়েবসাইট তৈরী করতে হবে। ওয়েবসাইট তৈরী করা খুব কঠিন আবার খুব সহজ। আপনি যদি ওয়েবসাইট ডেভলপমেন্ট না জানেন তাহলে ওয়েবসাইট তৈরী করা আপনার জন্য খুব কঠিন হবে। কোন ফ্রিল্যান্সার দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরী করিয়ে নিতে চাইলে অনেক টাকা খরচ হবে।

যেহেতু আমরা বাংলা আর্টিকেল লিখে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করবো গুগল এ্যাডসেন্সের মাধ্যমে, সেহেতু আমরা কঠিন কাজের দিকে যাবো না। সহজে যেভাবে বাংলা ওয়েবসাইট তৈরী করা যায় আমরা সেদিকেই আগাবো। 

খুব সহজে বাংলা ওয়েবসাইট তৈরী করে আয় করার জন্য আমরা দুইটা মাধ্যম ব্যবহার করতে পারি, যেমন- ওয়ার্ডপ্রেস এবং ব্লগার। ওয়ার্ডপ্রেস এবং ব্লগারে ওয়েবসাইট তৈরী করার জন্য আপনাকে ওয়েব ডেভলপমেন্ট শেখার দরকার নেই। ইউটিউবে প্রচুর টিউটোরিয়াল আছে যেগুলো দেখে আপনি নিজেই কয়েক ঘন্টার মধ্যে আপনার ওয়েবসাইট তৈরী করে ফেলতে পারবেন।

ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরী:- 

ওয়ার্ডপ্রেসে বাংলা ওয়েবসাইট তৈরী করতে হলে খরচ একটু বেশি হবে। কারণ সেখানে ৩ টা জিনিস কিনতে হবে। যেমন- হোস্টিং কিনতে হবে, ডোমেইন কিনতে হবে এবং একটি থীম কিনতে হবে। যদিও ফ্রি থীম ব্যবহার করে ওয়েবসাইট তৈরী করা যায়, তবে আমি আপনাদের সাজেস্ট করবো ফ্রি থীম ব্যবহার না করে প্রিমিয়াম থীম ব্যবহার করার জন্য। প্রিমিয়াম থীমের সুযোগ সুবিধা বেশি এবং সহজে গুগল এ্যাডসেন্স এর অনুমোদন পাওয়া যায়। তাছাড়া প্রিমিয়াম থীম দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরী করলে তা প্রেফেশনাল মানের ওয়েবসাইট হয়।

ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরী করতে আনুমানিক খরচ হতে পারে- একটা ভালো ডোমেইনের খরচ= ১০০০ টাকা, হোস্টিং খরচ প্রতি বছরে আনুমানিক- ৩০০০ টাকা, একটা প্রিমিয়াম থীম কিনতে আনুমানিক ২০০০ টাকা লাগতে পারে। ওয়ার্ডপ্রেসে ওয়েবসাইট তৈরী করতে আপনাকে এককালীন প্রায় ৬০০০ টাকা খরচ করতে হবে। এরপর প্রতিবছর হোস্টিং এবং ডোমেইন রিনিউ করতে প্রায় ৩০০০+১০০০= ৪০০০ হাজার টাকা খরচ করতে হবে।

ওয়ার্ডপ্রেসে ওয়েবসাইট তৈরী করার সুবিধা হচ্ছে আপনি ইচ্ছামত আপনার ওয়েবসাইটকে কাস্টমাইজ করতে  পারবেন। অনেক প্রয়োজনীয় প্লাগিনস ফ্রিতে পাবেন সেগুলো ব্যবহার করে বড় বড় কাজকে সহজে করে ফেলতে পারবেন।

ব্লগার দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরী:-

ব্লগার হচ্ছে গুগলেরই একটি সার্ভিস। ব্লগার দিয়ে বাংলা ওয়েবসাইট তৈরী করা খুব সহজ এবং খরচ কম। ব্লগার দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরী করতে হলে আপনাকে কখনোই হোস্টিং ক্রয় করা লাগবে না। গুগল ফ্রিতে আপনাকে আনলিমিটেড হোস্টিং সরবরাহ করবে। 

ব্লগার দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরী করতে হলে আপনাকে একটি ডোমেইন কিনতে হবে। আপনি চাইলে ডোমেইন না কিনলেও পারেন, তবে আমি সাজেস্ট করবো একটি ডোমেইন কিনতে এবং .com এক্সটেনশনের ডোমেইন কিনতে পারলে ভালো হয়। একটি ব্লগার থীম/টেমপ্লেট কিনতে হবে। ১০০০-১২০০ টাকার মধ্যে অনেক ভালো মানের ব্লগার থীম/টেমপ্লেট কিনতে পারবেন।

বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করার জন্য ব্লগারে ওয়েবসাইট তৈরী করতে এককালীন সর্বোচ্চ ২০০০-২৫০০ টাকা খরচ করলেই হবে। শুধু প্রতিবছর ডোমেইন রিনিউ করার জন্য প্রায় ১০০০ টাকা খরচ করলেই হবে।

আর যদি ফ্রি ডোমেইন এবং ফ্রি থীম ব্যবহার করতে চান তাহলে এক টাকাও খরচ হবে না, সম্পূর্ণ ফ্রিতে বাংলা ওয়েবসাইট তৈরী করে আয় করতে পারবেন। তবে ভালো হবে যদি প্রিমিয়াম থীম এবং ডোমেইন ব্যবহার করেন। ডোমেইন খরচ কমানোর জন্য .xyz এক্সটেশনের ডোমেইন কিনতে পারেন ২০০-২৫০ টাকার মধ্যে ডোমেইন কিনতে পারবেন।

ব্লগারে ওয়েবসাইট তৈরী করলে ইচ্ছামত আপনার ওয়েবসাইটে কাস্টমাইজ করতে পারবেন না। গুগল যতটুকু সুবিধা আপনাকে দেবে সেটুকু নিয়েই আপনাকে সন্তুষ্ট থাকতে হবে। তবে শুধু বাংলা আর্টিকেল লিখে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করার জন্য ব্লগার যথেষ্ট ভালো একটা মাধ্যম এবং আপনি নিসন্দেহে ব্লগারে আপনার ব্লগিং শুরু করতে পারেন।

বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে হলে কি কি বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে?

  • বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে হলে ওয়েবসাইটে ইউনিক এবং খুব ভালো মানের কন্টেন্ট বা আর্টিকেল পোষ্ট করতে হবে। কপিরাইট কন্টেন্ট বা আর্টিকেল দিয়ে গুগলের এ্যাডসেন্স এ্যাপ্রুভ্যাল পাওয়া যাবে না।
  • ওয়েবসাইটে ব্যবহার করা ছবিগুলো নিজের তৈরী করা হতে হবে। অন্যের ছবি হুবহু কপি করে ব্যবহার করা যাবে না। প্রয়োজনে অন্যের ছবি নিয়ে ভালো করে এডিট করে নিতে হবে যাতে গুগল কপিরাইট না ধরতে পারে।
  • ওয়েবসাইটে Contact Us পেজ, About Us পেজ, Privacy Policy পেজ এবং প্রয়োজনে Disclaimer পেজ তৈরী করে রাখতে হবে। এই পেজগুলো ওয়েবসাইটে না থাকলে গুগল আপনাকে  এ্যাডসেন্স এর অনুমোদন দেবে না। 
  • কম করে ২৫-৩০ টি আর্টিকেল পোষ্ট করার পর এ্যাডসেন্স এর জন্য আবেদন করলে ভালো হয়।

প্রতি মাসে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করা যায় কত টাকা?

প্রতি মাসে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে কত টাকা আয় হয় এ প্রশ্নের সটিক উত্তর কেউই দিতে পারবে না। তবে আনুমানিক একটা ধারণা দেয়া সম্ভব। গুগল এ্যাডসেন্স থেকে আয় হয় সিপিস (CPC- Cost Per Click) এর উপর নির্ভর করে। 

বাংলাদেশ থেকে CPC খুবই কম দেয়া হয়। আপনার ওয়েবসাইটে গুগল যে বিজ্ঞাপন শো করাবে সেই বিজ্ঞাপনে যদি বাংলাদেশ থেকে কেউ ক্লিক করে তাহলে প্রতি ক্লিকের জন্য $0.02 - $0.05 পর্যন্ত আয় হতে পারে। কখনো কখনো এর থেকেও বেশি আয় হয়। 

তবে USA থেকে কোন ব্যক্তি যদি আপনার বিজ্ঞাপনের উপর ক্লিক করে তাহলে প্রতি ক্লিকের জন্য $0.02 - $ 5 পর্যন্ত আয় হতে পারে। কখনো কখনো এর থেকে বেশি আয় হতে পারে।

বাংলাদেশ থেকে আপনার ওয়েবসাইটের ১০০০ পেজ ভিউ হলে গড়ে ২ - ২.৫০ ডলার আয় হতে পারে। তবে এতে নিরাশার কিছু নেই। আপনার লেখা আর্টিকেল যদি মানসম্মত এবং ইউনিক হয় এবং এর থেকে ভিজিটর যদি উপকৃত হয় তাহলে আপনার ওয়েবসাইট গুগলে র‌্যাংক করবেই। আর ওয়েবসাইট র‌্যাংক করলে গুগল থেকে প্রতিদিন কম করে ৫ - ১০ হাজার  ভিজিটর পাবেন। কখনো কখনো আরো বেশি ভিজিটর পেতে পারেন।

কোন ওয়েবসাইটে প্রতিদন ১০ হাজার ভিজিটর আসলে সেখানে কম করে ৩০ -৫০ হাজার পেজ ভিউ হতে পারে। ওয়েবসাইটের ১০০০ পেজ ভিউতে যদি ২ ডলার আয় হয় তাহলে ৩০ হাজার পেজ ভিউতে কম করে ৬০ ডলার প্রতিদন আয় হতে পারে। 

প্রতিদিন ৬০ ডলার হলে মাসে ৬০ x ৩০ = ১৮০০ ডলার। ১৮০০ x ৮৫ (টাকা প্রতি ডলার) = ১৫৩০০০ টাকা প্রতি মাসে আয় করতে পারবেন একটি মাত্র বাংলা ওয়েবসাইট থেকে। 

দরকার নেই ছেড়ে দেন আপনার প্রতি দিন যদি ১০ হাজার পেজ ভিউ হয় তাহলেও আপনি প্রতি মাসে কম করে ৫০০০০ টাকা নিজের ঘরে বসে আয় করতে পারবেন।

কতদিন লাগবে বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় হতে?

যদি বলি আপনি ২ মাসের মধ্যে প্রতি মাসে ৩০-৫০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন তাহলে সেটা নিছকই মিথ্যা কথা বলা হবে। ব্লগিং করে আয় করতে হলে সময় হাতে নিয়ে আগাতে হবে। আপনি আজ ব্লগিং শুরু করে কাল ইনকাম আশা করলে হবে না। 

ব্লগিং করা হচ্ছে ফলের গাছ লাগানোর মত। তবে আপনি গাছ লাগাবেন ঠিকই কিন্ত ফলের চিন্তায় ব্যস্ত হবে না। দেখবেন একদিন এমনিতেই ফল ধরেছে। গাছ লাগানোর আগে ফলের চিন্তা করলে কখনোই দিন পার হবে না। 

প্রথমে আপনাকে একটি ওয়েবসাইট তৈরী করতে হবে তারপর সেখানে প্রতিনিয়ত ভালো ভালো কন্টেন্ট বা আর্টিকেল পোষ্ট করতে হবে। ধীরে ধীরে সাইটে ভিজিটর আসতে শুরু করবে এবং দিন দিন ভিজিটর বাড়তে শুরু করবে। 

সোজা কথা আপনি যদি মন দিয়ে কাজ করেন তাহলে তিন থেকে চার মাসের মধ্যে এ্যাডসেন্স পেয়ে যাবেন। প্রথম পর্যায়ে আপনার ইনকাম কমই হবে। কখনোই একবারে গাছের আগায় উঠতে পারবেন না। তবে আপনি নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন সঠিকভাবে কাজ করলে একদিন ঠিকই গাছের আগায় উঠে যেতে পারবেন।

আপনি কম করে ৮ থেকে ১০ মাস সময় হাতে নিয়ে যদি একনাগাড়ে কাজ করে যেতে পারেন তাহলে দেখবেন পরবর্তীতে কোন কাজ না করেই  প্রতিমাসে একজন তৃতীয় শ্রেণীর সরকারি চাকরীজীবির থেকে বেশি টাকা আয় করতে পারছেন।

পরিশেষে:- 

বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করার উপায় সম্পর্কে যতটুকু তথ্য আপনাদের দিয়েছি তা সম্পূর্ণ সঠিক তথ্য। প্রয়োজনে আরো ভালো করে যাচাই বাছাই করে তারপর বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করার জন্য কাজ শুরু করুন। একটা কথা মনে রাখবেন কোন কিছুই সহজে প্রাপ্ত করা যায় না। যা কিছু খুব সহজে প্রাপ্ত হয় যায় তা বেশি দিন থাকে না। ব্লগিং করে আয় করতে হলে একটু কষ্ট তো করতেই হবে। আজ কষ্ট করলে হয়তো ভব্যিষ্যতে একটি ব্লগ থেকে হাজার হাজার ডলার আয় করতে পারবেন।

বাংলা ওয়েবসাইট থেকে আয় করার উপায় সম্পর্কে যদি কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্টস করবেন। আপনাদের প্রশ্নের উত্তর দিতে অবশ্যই চেষ্টা করবো। লেখাটি যদি ভালো লাগে তাহলে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করার অনুরোধ রইলো। ধন্যবাদ...!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন

Custom Widget

Recent in Sports